Total Online Solution https://tosbd.com Authentic Server & It Solution Wed, 05 Jul 2023 10:45:24 +0000 en-US hourly 1 https://wordpress.org/?v=6.5.4 https://tosbd.com/wp-content/uploads/2021/09/Untitled-design-18-100x100.png Total Online Solution https://tosbd.com 32 32 মাইক্রোসফট অফিস ৩৬৫ – কি, কেন এবং কিভাবে ব্যবহার করবেন? https://tosbd.com/office-365/ https://tosbd.com/office-365/#respond Sun, 20 Jun 2021 11:27:46 +0000 https://tosbd.com/?p=16917 ‘অফিস ৩৬৫’ মাইক্রোসফটের অনেকগুলো এপ্লিকেশনের একটি প্যাকেজ। পূর্বে এটি ‘মাইক্রোসফট ৩৬৫’ নামে পরচিত ছিলো কিন্তু বর্তমানে এটি ‘অফিস ৩৬৫’ নামে পরিচিত। ‘অফিস ৩৬৫’ এর সফটওয়্যারগুলো ব্যাক্তিগত কাজ থেকে শুরু করে এন্টারপ্রাইজ লেভেলের বড় যেকোনো কাজের জন্য উপযুক্ত করে বানানো। এই আর্টিকেলে আমরা দেখব ‘অফিস ৩৬৫’ এ কি কি এপ্লিকেশন আছে। এছাড়াও এর সাবস্ক্রিপশন প্যাকেজগুলো নিয়েও জানব।

অফিস ৩৬৫ এর মূল্য তালিকা:

মাইক্রোসফট অফিসের এপ্লিকেশনগুলো দুই ভাগে বিভক্ত। একটি ‘ফ্যামেলি প্ল্যান’ আর আরেকটি হচ্ছে ‘বিজনেস প্ল্যান।

প্যাকেজএ্যাপ্লিকেশন সমূহইউজারমূল্য (ডলার)
পার্সোনাল সকল অফিসএপ্লিকেশন এডিটরওয়ান ড্রাইভস্কাইপি (৬০ মিনিট/মাস)১ জন$৬৯.৯৯/ বছর $৬.৯৯/ মাস
ফ্যামেলিসকল অফিসএপ্লিকেশন এডিটরওয়ান ড্রাইভস্কাইপি (৬০ মিনিট/মাস)৬ জন$৯৯.৯৯/ বছর $৯.৯৯/ বছর
বিজনেস বেসিকওয়ার্ড , এক্সেল ও পাওয়ার পয়েন্ট ওয়েব এপ্লিকেশন ওয়ান ড্রাইভ টিমস এক্সচেঞ্জ শেয়ার পয়েন্ট  $২.৫/ মাস
বিজনেস স্ট্যান্ডার্ডসকল অফিস এপ্লিকেশন টিমস একচেঞ্জ ওয়ান ড্রাইভ শেয়ার পয়েন্ট$১০/মাস
বিজনেস প্রিমিয়ামসকল অফিস এপ্লিকেশন টিমস এক্সচেঞ্জ এজিউর ইনটিউন ও অন্যান্য এড অন$২০/মাস

মাইক্রোসফট অফিস ৩৬৫ ফ্যামেলি প্ল্যানের সফটওয়্যার সমূহ:

আপনি মাইক্রোসফট অফিসের সকল সফটওয়্যারগুলো পাবেন এই প্যাকেজে। এই এ্যাপগুলো মোবাইল বা ট্যাবলেট পিসিতেও চালানো যাবে। এর সাথে অতিরিক্ত কিছু প্রয়োজনীয় সফটওয়্যারও পাবেন।

1. ওয়ার্ড

ডকুমেন্ট লেখা, এডিট করা সহ লেখালেখি সংক্রান্ত যাবতীয় কাজ আপনি করতে পারবেন এম এস ওয়ার্ডের মাধ্যমে।

2. এক্সেল

এক্সেল খুবই পাওয়ারফুল একটি সফটওয়্যার। এটি দিয়ে যেকোনো ধরনের হিসাব রাখা, চার্ট তৈরি করা করা সহ যাবতীয় কাজ করতে পারবেন। একটি স্কুলের রেজাল্ট শিট থেকে শুরু করে একটা বড় কর্পোরেশনের এ্যাকাউন্টস যেকোনো ধরনের কাজই এক্সেল দিয়ে করা যায়।

3. পাওয়ার পয়েন্ট

প্রেজেন্টেশন তৈরি করার জন্য পাওয়ার পয়েন্টের বিকল্প নেই। স্কুল, কলেজের প্রেজেন্টেশনই নয় শুধু প্রফেশনাল প্রেজেন্টেশন তৈরি করতেও পাওয়ার পয়েন্ট কাজে লাগে। তাছাড়াও এর এনিমেশন অপশনটি ব্যবহার করে মার্কেটিং এর কাজেও পাওয়ার পয়েন্ট ব্যবহার করা হয়।

4. আউটলুক

ইমেইল ম্যানেজমেন্টের জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয় একটি সফটওয়্যার আউটলুক। এটিতে আপনি আপনার অফিসের মেইল (ডোমেইন মেইল) যুক্ত করে সহজেই মেইল আদান প্রদান করতে পারবেন। তাছাড়াও ক্যালেন্ডার ও কন্টাক্ট অপশন দুইটি যেকোনো অফিস ম্যানেজমেন্টের কাজ অনেক সহজ করে দেয় এই আউটলুক এপ্লিকেশনটি।

5. ওয়ান নোট

নোট নেয়ার জন্য একটি অত্যন্ত ডায়নামিক একটি এপ্লিকেশন। আপনি ওয়ান নোটের মাধ্যমে শুধু নোট টাইপই করতে পারবেন না, আপনি এখানে হাতেও লিখতে পারবেন, ড্রয়িংও করতে পারবেন। শুধু তাই নাই, আপনি নোটের সাথে আপনার ভয়েজও সেভ করতে পারবেন। এই নোট আপনি যেকারো সাথে শেয়ারও করতে পারবেন। যারা আইডিয়া নিয়ে কাজ করেন তারা হঠাত করে কোনো আইডিয়া মাথায় এলে তুলে ফেলতে পারবেন ওয়ান নোটে।

6. পাবলিশার

পাবলিশারও মাইক্রোসফট ওয়ার্ডের মতোই একটি লেখালেখির সফটওয়্যার কিন্তু ওয়ার্ডের সাথে এর কিছুটা পার্থক্য আছে। ওয়ার্ড আপনার ডকুমেন্টের ফরম্যাটের উপরেই বেশি গুরুত্ব দেয় কিন্তু পাবলিশার গুরুত্ব দেয়া আপনার ডকুমেন্টের লে আউটের উপরে। মার্কেটিং কন্টেন্ট তৈরি করার জন্য এটি খুব কাজের সফটওয়্যার। বিশেষত ছোটো ও মাঝারি ব্যবসা মালিকরা এটি দিয়ে সহজেই আর কম খরচে মার্কেটিং কন্টেন্ট তৈরি করতে পারেন।

7. এ্যাকসেস

মাইক্রোসফটের একসেস একটি ডাটা ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার। এখানে প্রয়োজনীয় ডাটা সংরক্ষণ ও সংশোধন করা যায়। অনেক বড় ডাটা যা এক্সেলের পক্ষে মেইনটেইন করা কঠিন হয়ে যায় সেই ধরনের ডাটার কাজ একসেস দিয়ে অতি সহজেই করা যায়।

মাইক্রোসফট অফিসের সফটওয়্যারগুলো ছাড়াও আপনি নিচের দুইটি সার্ভিস পাবেন ফ্যামেলি প্যাকে:

  • এডিটর

আপনার লেখার গ্রামার, স্পেলিং ভুল ধরা সহ এডভান্স বেশ কিছু অপশন দিবে এডিটর টুলটি। আপনারা হয়ত গ্রামারলি সফটওয়্যারটি ব্যবহার করে থাকবেন। এডিটর অনেকটা গ্রামারলির মতো করেই কাজ করে।

  • ওয়ান ড্রাইভ

এটি গুগল ক্লাউডের মতো একটি ক্লাউড স্টোরেজ প্লাটফর্ম। আপনার ফ্যামেলি সাবস্ক্রিপশনের সাথে সাথে আপনি ওয়ান ড্রাইভে ১ টেরাবাইট পর্যন্ত স্টোরেজ পাবেন। যদি আপনি ফ্যামেলি প্যাকেজটি কিনেন তাহলে ৬ জন ব্যবহারকারীর জন্য ৬ টেরাবাইট ক্লাউড স্পেস পাবেন আর যদি পার্সোনাল প্যাকেজটি কিনেন তবে একজনের জন্য ১ টেরাবাইটই পাবেন।

ভাবতে পারেন স্কাইপি ত ফ্রিই পাওয়া যায় তাহলে এই প্যাকেজে স্কাইপির প্রয়োজন কি? স্কাইপি ফ্রিতে আপনি শুধু স্কাইপ আইডিতেই কল করতে পারবেন কিন্তু এই প্যাকেজের সাথে আপনি মাসে ৬০ মিনিট যেকোনো মোবাইলে কল করতে পারবেন স্কাইপি থেকে।

  • সিকিউরিটি সফটওয়্যার

এর বাইরেও আপনি পাবেন আপনার ডিভাইসকে ভাইরাস ও পিসিং আক্রমন থেকে রক্ষা করতে এডভান্সড সিকিউরিটি সফটওয়্যার। এই সিকিউরিটি সফটওয়্যার শুধু পিসি না আপনার মোবাইলকেও সংরক্ষণ করবে যেকোনো ধরনের হ্যাকিং বা স্পামিং থেকে।

অফিস ৩৬৫

মাইক্রোসফট অফিস ৩৬৫’ এর সুবিধা কি?

  • আপনি একটি সাবস্ক্রিপশন কিনেই অনেকগুলো প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার পেয়ে যাচ্ছেন যা আপনার কাজের গতিকের আরও বৃদ্ধি করতে পারবে এবং ম্যানেজমেন্টও ভালো হবে।
  • আপডেটের প্রয়োজন নেই। আপনার সকল সফটওয়্যার মাইক্রোসফট সার্ভার থেকে অটো আপডেট হয়ে যাবে। আপনি সর্বদাই লেটেস্ট ভার্সনই ব্যবহার করতে পারবেন।
  • ক্লাউড বেজড সফটয়্যার হওয়াতে আপনি যেকোনো ডিভাইস থেকে লগ ইন করে কাজ সম্পন্ন করতে পারবেন। ফাইল সেইভ করা বা পেন ড্রাইভে বহন করার প্রয়োজন পরবেনা।
  • ফ্যামেলি প্ল্যান কিনে আপনি একটি সফটয়্যার একাধিক মানুষ মিলে ব্যবহার করতে পারবেন। এই কারনে বলা যায় এই প্যাকেজটি আলাদা সফটওয়্যার কেনার চাইতে কস্ট ইফেক্টিভ।
  • আপনি সহজেই ফাইল বা ডাটা শেয়ার করতে পারবেন অন্যদের সাথে।
  • আপনার প্রয়োজন মতো এপ্লিকেশন নিয়ে প্যাকেজ কিনতে পারবেন।
  • যেকোনো সময় প্যাকেজ পরিবর্তন করে অন্য প্যাকেজে যাওয়া যাবে।

অফিস ৩৬৫ ফ্যামেলি প্যাকেজের দাম কতো?

ফ্যামেলি প্ল্যানে তিন ধরনের প্যাকেজ আছে:

  • পার্সোনাল প্যাকেজঃ এই প্যাকেজে আপনি উল্লেখিত সবগুলো সফটওয়্যারই পাবেন কিন্তু একজন ইউজারই ব্যবহার করতে পারবে। এর মূল্য ৫৭৯ প্রতি মাস অথবা ৫৭৯৯ টাকা প্রতি বছর।
  • ফ্যামেলি প্যাকেজঃ এই প্যাকেজে আপনি উপরে উল্লেখিত সফটওয়্যারগুলোর সবগুলোই পাবেন এবং ৬ জন ইউজার এটি ব্যবহার করতে পারবে। এর মূল্য ৭৭৯ প্রতি মাস অথবা ৭,৭৯৯ টাকা প্রতি বছর
  •  স্টুডেন্টঃ যদি আপনি সাবক্রিপশন কিনতে না চান তাহলে আপনি চাইলে এককালীন টাকা দিয়ে অফিসের তিনটি সফটওয়্যার ওয়ার্ড, এক্সেল, পাওয়ার পয়েন্ট কিনতে নিতে পারেন। তবে এক্ষেত্রে আপনি শুধু পিসিতেই সেগুলো ইউজ করতে পারবেন এবং কোনো ক্লাউড স্টোরেজ পাবেন না। এই প্যাকেজের মূল্য ১১,৯৯৯ টাকা আজীবন।

অফিস ৩৬৫ বিজনেস বেসিক প্ল্যান:

বিজনেস বেসিক প্ল্যানে আপনি পাবেন ওয়ার্ড, এক্সেল আর পাওয়ার পয়েন্টের ওয়েব ভার্সন  আর তার সাথে নিম্নলিখিত সফটওয়্যারগুলোও পাবেন।

  1. টিমস

এটি একটি অফিস ম্যানেজমেন্ট টুল যা দিয়ে অনলাইন অফিস পরিচালনা করা যায়। অনেকটা জুমের মতো তবে তবে জুমের চাইতেও এখানে অনেক বেশি সুবিধা আছে।

2. শেয়ার পয়েন্ট

এটি একটি কন্টেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম। এটি দিয়ে কন্টেন্ট তৈরি করা, শেয়ার করা, টাস্ক এ্যাসাইন করা সহ নানা কাজে ব্যবহার করা যায়।

3. এক্সচেঞ্জ

মাইক্রোসফট একচেঞ্জ একটি মেইল সার্ভার যা বড় প্রতিষ্ঠানের মেইল ম্যানেজমেন্টের জন্য ব্যবহার করা হয়।

অফিস ৩৬৫ বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড প্ল্যান

এই প্যাকেজে আপনি বিজনেস বেসিক আর ফ্যামেলি প্যাকেজের সবগুলো সফটওয়্যারই পাবেন। বেসিক প্ল্যানে আপনি অফিস এপ্লিকেশনগুলোর শুধু ওয়েব ভার্সন পেয়েছিলেন কিন্তু এই প্যাকেজ কিনলে আপনি ডেস্কটপ ভার্সনও পাবেন। তার মানে আপনি আপনার কম্পিউটারে অফ লাইনেও কাজ করতে পারবেন আর সেটি অটোমেটিক ক্লাউড স্টোরেজে জমা হয়ে যাবে।

তবে পাবলিশার আর একসেস এর শুধু মাত্র ডেস্কটপ এ্যাপই পাবেন, অনলাইন ভার্সন পাবেন না। বিজনেস প্ল্যানের সকল প্যাকেজেই এই দুটি সফটওয়্যারের শুধু ডেস্কটপ ভার্সনই দেয়া হয়।

অফিস ৩৬৫ বিজনেস প্রিমিয়াম প্ল্যান:

এই প্ল্যানে আপনি বিজনেস স্ট্যান্ডার্ডের সবগুলো এপ্লিকেশনই পাবেন। তার সাথে আর যা যা পাবেনঃ

  • এ্যাজিউর ইনফর্মেশন প্রটেকশন

এটি একটি ক্লাউড কম্পিউটিং সার্ভিস যা দিয়ে এপ্লিকেশন তৈরি করা, টেস্ট করা এবং পরিচালনা করা যায়। এক্ষেত্রে মাইক্রোসফটের ডাটা সেন্টার ব্যবহার করেই সকল কাজ করা যায়, প্রতিষ্ঠানের নিজের ডাটা সেন্টারের প্রয়োজন পরেনা।

  • ইনটিউন

এটি একটি ক্লাউড বেজড প্লাটফর্ম যার মাধ্যমে একটি প্রতিষ্ঠানের সকল মোবাইল ডিভাইস এবং মোবাইল এপ্লিকেশন মনিটর করা যায়। এছাড়াও এই প্লাটফর্ম ব্যবহার করে সকল মোবাইল ডিভাইস, ল্যাপটপ এবং ট্যাবলেটকে প্রতিষ্ঠানের নিয়ম অনুযায়ী কনফিগার করে দেয়া যায়।

  • ইয়ামার

ফেসবুকের মতো সোশাল মিডিয়া মডিউল যা মাইক্রোসফট টিমের সাথে কাজ করে। এই মডিউল যুক্ত হলে টিমসে একজন ইউজার কিছু পোস্ট করতে পারে এবং বাকিরা সেখানে নিজস্ব মতামত দিতে পারে। আলাদা আলাদা চ্যানেল (ফেসবুক গ্রুপের মতো) তৈরি করে সেখানেও পোস্ট দিয়ে আলাপ আলোচনা করা যায়।

  • সোয়ে

পাওয়ার পয়েন্টের একটি এডভান্সড ভার্সন যা দিয়ে আরও ইন্টারেক্টিভ প্রেজেন্টেশন তৈরি করা যায়। ইউজার নিজের পছন্দ মতো কন্টেন্ট ডিভাইস অথবা অনলাইন থেকে যুক্ত করতে পারে এবং সোয়ে সেটিকে একটি ডায়নামিক প্রেজেন্টেশনে রুপান্তর করতে পারে।

  • স্ট্রিম

ইউটিউবের মতো একটি ভিডিও ফাইল শেয়ারিং প্লাটফর্ম। এটি একটি কোম্পানির নিজস্ব ভিডিও স্ট্রিমিং সাইট হিসেবে ব্যবহার করে ভিডিও শেয়ার করা যায়। কোম্পানির বাকিরা সেই ভিডিও দেখে নিজের মতামত জানাতে পারে। তাছাড়া লাইভ ইভেন্ট, ট্রেনিং এসকল কাজেও স্ট্রিম ব্যবহার করা হয়।

  • প্ল্যানার

একটি প্রতিষ্ঠানের কর্মিরা এখানে কাজের প্ল্যান তৈরি এবং সেটিকে গুছিয়ে রাখতে পারেন। পরবর্তীতে সেই প্ল্যানটি কার্যকর করার জন্য কর্মিকে দায়িত্ব দিতে পারেন এবং এর আপডেটও নিতে পারেন। বড় প্রজেক্টে কাজ করার জন্য এটি দারুন একটি সফটওয়্যার।

  • পাওয়ার এ্যাপস

পাওয়ার এ্যাপে হচ্ছে বিভিন্ন এ্যাপ, সার্ভিস, কানেক্টর ও ডাটা প্লাটফর্মের প্যাকেজ। এগুলো ব্যবহার করে কোম্পানি নিজের মতো করে এ্যাপ তৈরি এবং ব্যবহার করতে পারে। পাওয়ার এ্যাপস দিয়ে বানানো এ্যাপস মোবাইল রেসপন্সিভ এবং ব্রাউজারেও কাজ করে।

  • পাওয়ার বায়ো প্রো

এটি একটি এ্যানালাইটিকাল টুল। এটি ব্যবহার করে দ্রুততার সাথে বিভিন্ন ডাটা পর্যবেক্ষন ও পর্যালোচনা করা যায়। একটি কোম্পানির পুরো কার্যক্রমের আপডেট নির্নয় করার জন্য এটি খুবই দরকারি একটি টুল।

অফিস ৩৬৫ ব্যাক্তিগত, প্রয়োজন থেকে শুরু করে ছাত্র ছাত্রী এবং প্রফেশনালদের জন্য খুবই প্রয়োজনীয় একটি সফটওয়্যার প্যাকেজ। বর্তমানে কোভিডের জন্য যখন স্কুল কলেজ বন্ধ তখন এই এ্যাপের প্রয়োজনীয়তা শিক্ষা খাতে আরও বেড়ে গিয়েছে। তাছাড়া অনলাইন অফিস পরিচালনা করার জন্যও এটি খুবই কার্যকরী প্যাকেজ।

স্বল্প মূল্যে মাইক্রোসফট অফিস ৩৬৫ এবং উইন্ডোজ সহ প্রয়োজনীয় সব সফটওয়্যার ক্রয় করতে ভিজিট করুন https://tosbd.com/software . টোটাল অনালাইন সলিউশন মাইক্রোসফট কর্পোরেশন এর অথরাইজড পার্টনার।

]]>
https://tosbd.com/office-365/feed/ 0
অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার কী? | আপনার পিসি বা ল্যাপটপে অ্যান্টিভাইরাস কেন প্রয়োজন! https://tosbd.com/antivirus-software/ https://tosbd.com/antivirus-software/#comments Thu, 03 Jun 2021 10:31:19 +0000 https://tosbd.com/?p=16645

কম্পিউটার হ্যাকাররা প্রতিনিয়ত নতুন নতুন ভাইরাস তৈরি করে চলছে। এসব নতুন ভাইরাসের আক্রমন থেকে কম্পিউটার বা পছন্দের ডিভাইসটিকে সুরক্ষিত রাখতে প্রয়োজন ভালোমানের একটি আপডেটেড ডাটাবেজ সম্বলিত অ্যান্টিভাইরাস। এসব অ্যান্টিভাইরাসের আপডেটেড ডাটাবেজে ‘ভাইরাস ডেফিনিসন লিস্ট’ থাকে আপটুডেট। যা কিনা নতুন নতুন সব ভাইরাস চিহ্নিত ও নির্মূল করতে কার্যকরি ভূমিকা পালন করে।

ভাইরাস কি?

কম্পিউটার ভাইরাস এমন একধরনের প্রোগ্রাম যা কম্পিউটার, ডিভাইস এবং সেখানে থাকা ফাইল এর ক্ষতি করে এবং সংক্রমিত ফাইলকে ব্যবহারের অযোগ্য করে তোলে। ভাইরাস প্রোগ্রাম কার্যকর হলে তা স্বয়ংক্রিয়ভাবে নিজের প্রতিলিপি তৈরি করে। ভাইরাস তার নিজস্ব কোডিং এর মাধ্যমে কম্পিউটার বা ডিভাইসের অন্যান্য প্রোগ্রাম বা ফাইল সংশোধন করতে সক্ষম। ডিভাইসের কোনো ফাইল ভাইরাস আক্রান্ত হলে, এই সংক্রমন দ্রুত ডিভাইসের অন্যান্য ফাইলে ছড়িয়ে পরে। সংক্রমণ দ্রুত বন্ধ করা সম্ভব না হলে শেষপর্যন্ত ডিভাইসটি ক্র্যাশ করতে পারে। ডিভাইসকে এধরনের সমস্যা থেকে মুক্ত রাখতে বিভিন্ন ধরনের অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

যেহেতু কম্পিউটার ভাইরাস শুধুমাত্র ডিভাইসের প্রোগ্রামিং এ আক্রমন করে সেজন্য ভাইরাস দেখা যায় না। তবে কিছু নির্দিষ্ট লক্ষণ বিশ্লেষণের সাহায্যে কোনো ডিভাইস ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত হয়েছে কিনা তা বোঝা যায়। চলুন তবে একনজরে দেখে নেই লক্ষণ গুলো:

  • ডিভাইসের সিস্টেমের গতি কমে যায় এবং এপ্লিকেশন শুরু হতে তুলনামূলক বেশি সময় নেয়।
  • আক্রান্ত ডিভাইসে প্রোগ্রাম একাধিক পপ-আপ উইন্ডোস চালু হয়ে যায়।
  • ভাইরাসে আক্রান্ত প্রোগ্রাম স্বয়ংক্রিয়ভাবে ব্যাকগ্রাউন্ডে কাজ করতে শুরু করে।
  • একাউন্ট হ্যাক হওয়া এবং একাউন্ট থেকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে লগ আউট হয়ে যাওয়া।
  • ডিভাইস ক্র্যাশ করে, অনেক ক্ষেত্রে ডিভাইস কাজ করা বন্ধ করে দেয়।

কোনো ডিভাইস ভাইরাস আক্রান্ত হলে প্রথমত ডিভাইসটির প্রসেসিং স্পিড কমে যেতে শুরু করে, পরবর্তীতে অন্যান্য লক্ষণ দেখা দিতে শুরু করে।

ভাইরাস কিভাবে কাজ করে?

কিছু ভাইরাস কম্পিউটারের বুট সেক্টরকে অর্থাৎ কম্পিউটারের হার্ড ড্রাইভের যে অংশ স্টার্ট-আপ রুটিনের কোড সংরক্ষণ করে সেখানে আক্রমন করে। এধরনের ভাইরাস কম্পিউটার চালু করার সাথে সাথে স্বয়ংক্রিয়ভাবে চালু হয়ে ডিভাইসের ক্ষতি করে।

আবার কিছু ভাইরাস ইমেইল, গেমস বা সংযুক্ত ডকুমেন্ট এর মাঝে লুকিয়ে থাকে। এধরনের ভাইরাসে ডিভাইস আক্রান্ত হবার পরও সেসব এপ্লিকেশন  স্বাভাবিকভাবে কাজ করতে থাকে। এরকম ভাইরাসের কোড আক্রান্ত ডিভাইসের কন্টাক্ট লিস্টের সকলকে ভাইরাস সম্বলিত মেইল স্বয়ংক্রিয়ভাবে পাঠাতে সক্ষম।

কম্পিউটার বা ডিভাইসের জন্য আরেকটি ক্ষতিকর এজেন্ট হল ওয়ার্ম। এরা স্বয়ংক্রিয়ভাবে নিজেদের প্রতিলিপি তৈরি করতে পারে। অধিকাংশক্ষেত্রে এধরনের ভাইরাস ডিভাইসের প্রোগ্রামিংকে সংক্রমিত করে অন্যান্য অগণিত কম্পিউটারে নিজেদের প্রতিলিপি প্রেরণ করে। এধরণের ভাইরাস নেটয়ার্কের মাধ্যমে অন্যান্য ডিভাইসকে সংক্রমিত করে। আক্রান্ত ডিভাইসের প্রসেসিং পাওয়ার এবং ব্যান্ডউইথ ব্যবহার করে এধরনের ভাইরাস এই কাজটি করে থাকে।

তবে সবচেয়ে ব্যাঘাত সৃষ্টি করে বটনেট। প্রায়শই ইমেইল এটাচমেন্ট এর সাহায্যে ক্ষতিকর কোড হাজার হাজার কম্পিউটারে ছড়িয়ে দেয় এবং স্বয়ংক্রিয়ভাবে সেসব কম্পিউটারে নিজেদের ইন্সটল করে ফেলে।

অ্যান্টিভাইরাস কি?

অ্যান্টিভাইরাস বিশেষভাবে ডিজাইনকৃত একধরনের কম্পিউটার প্রোগ্রাম যা কিনা কম্পিউটারের বিভিন্ন ধরনের ম্যালওয়ার, ভাইরাস; ওয়ার্মস, ট্রোজানস, এডওয়্যার এর মতো বিভিন্ন ধরনের ক্ষতিকর সফটওয়্যার খুঁজে বের করা, শনাক্ত করা, ভাইরাসের প্রবেশ ঠেকানো এবং তা অপসারণ করার জন্য ব্যবহার করা হয়। কম্পিউটারে পরবর্তীতে কোনো নতুন ভাইরাস এর আক্রমন ঠেকাতেও অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহৃত হয়।

উইন্ডোজ, ম্যাক-ওএস, অ্যান্ড্রয়েড, আইফোন এবং লিনাক্সসহ বিভিন্ন ধরনের অপারেটিং সিস্টেমের জন্য আলাদা আলাদা ধরনের অ্যান্টিভাইরাস প্রোগ্রাম রয়েছে।

যেমনঃ Kaspersky, Malwarebytes, mcAfee, Emsisoft, Bitdefender, ESET ইত্যাদি।

অ্যান্টিভাইরাস কিভাবে কাজ করে?

অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার নেটওয়ার্ক ট্রাফিকের মাধ্যমে আসা কম্পিউটার বা ডিভাইসের প্রতিটি ফাইল এবং কোড স্ক্যান করে। যেসব কোম্পানি অ্যান্টিভাইরাস প্রস্তুত করে থাকে; তারা এখন পর্যন্ত শনাক্তকৃত সকল ভাইরাস এবং ম্যালওয়্যার এর একটি বিস্তৃত ডাটাবেজ অনুসরণ করে এবং অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যারকে সেসব ভাইরাস, ম্যালওয়্যার শনাক্ত করতে এবং তা নির্মূলে সক্ষম করে প্রোগ্রামিং করে থাকে।

অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার কম্পিউটারের সকল ফাইল, এপ্লিকেশন, প্রোগ্রামকে সেই ডাটাবেজের সাথে মিলিয়ে স্ক্যান করে। কোনো ফাইল, প্রোগ্রাম বা এপ্লিকেশনে যদি সেই ডাটাবেজের সাথে কোনো কিছু পুরোপুরি মিলে যায় তবে অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার সেই ফাইল, প্রোগ্রাম, এপ্লিকেশনকে ভাইরাস হিসেবে চিহ্নিত করে, পৃথক করে এবং নির্মূল করে।

অধিকাংশ অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যারে স্বয়ংক্রিয় এবং ম্যানুয়ালি উভয় পদ্ধতিতে ভাইরাস, ম্যালওয়্যার স্ক্যান করা এবং তা ডিভাইস থেকে অপসারণ করার অপশন থাকে। অ্যান্টিভাইরাস স্বয়ংক্রিয়ভাবে স্ক্যানিং সম্পন্ন করার পর খুঁজে পাওয়া ভাইরাস অপসারণের জন্য অনুমতি চেয়ে থাকে এবং স্বয়ংক্রিয়ভাবেও তা অপসারণ করতে সক্ষম।

ম্যালওয়্যারঃ

ডাটা চুরি, কম্পিউটার ডিভাইসের ক্ষতি থেকে শুরু করে কারো ডিজিটাল নিরাপত্তায় আক্রমন সহ যেকোনো ধরনের ক্ষতিসাধনের উদ্দ্যেশ্যে তৈরি করা সফটওয়্যার হচ্ছে ম্যালওয়্যার। সাধারণত সন্দেহজনক কোনো লিঙ্ক থেকে ডাউনলোড করা কোনো প্রোগ্রাম রান করার ফলে ম্যালওয়্যার কম্পিউটার বা ডিভাইসকে আক্রান্ত করে।

অ্যান্টিভাইরাস ও অ্যান্টিমেলওয়্যার এর মধ্যে পার্থক্যঃ

অ্যান্টিভাইরাস ও অ্যান্টিম্যালওয়্যার উভয়ই কম্পিউটার বা ডিভাইসকে ক্ষতিকর সফটওয়্যার থেকে নিরাপদ রাখার জন্য তৈরি করা হলেও, যেখানে অ্যান্টিভাইরাস সাধারণত পূর্বপরিচিত অসংখ্য ভাইরাস থেকে কম্পিউটারকে নিরাপদ রাখতে ব্যবহার করা হয়।

অন্যদিকে অ্যান্টিম্যালওয়্যার বিশেষত র‍্যানসমওয়্যার এবং ট্রোজানের মতো নির্দিষ্ট কিছু শক্তিশালী ভাইরাস থেকে নিরাপত্তা দিতে ব্যবহার করা হয়।

অ্যান্টিভাইরাস মূলত কম্পিউটারে যাতে ক্ষতিকর কোনো ফাইল ডাউনলোড না হয় বা প্রবেশ করে কম্পিউটারের ক্ষতি করতে না পারে সেজন্য প্রতিরোধমূলক নিরাপত্তার দিকে কাজ করে।

অন্যদিকে অ্যান্টিম্যালওয়্যার ইতোমধ্যে কম্পিউটারে বিদ্যমান ক্ষতিকর ফাইলগুলোকে খুঁজে বের করে এবং নিষ্ক্রিয় করতে প্রতিক্রিয়ামূলক নিরাপত্তা নিশ্চিত করে।

অ্যান্টিভাইরাস এর সুবিধা ও অসুবিধাসমূহঃ

সুবিধাঃ

  • ভাইরাস থেকে ডিভাইসকে নিরাপদ রাখা যায়
  • স্পাইওয়্যার থেকে ডিভাইসকে নিরাপদ রাখা যায়
  • নিরাপদভাবে ওয়েব ব্রাউজিং করা যায়
  • স্প্যাম থেকে নিরাপদ থাকা যায়
  • ফায়ারওয়াল
  • সাশ্রয়ী

অসুবিধাঃ

  • সিস্টেম স্লোডাউন
  • পরিপূর্ণ নিরাপত্তার সুযোগ নেই
  • নিরাপত্তার গহ্বর
  • সীমিত শনাক্তকরণ কৌশল
  • ঘন ঘন বিজ্ঞাপন
  • সীমিত গ্রাহক পরিসেবা

কিভাবে কম্পিউটার ভাইরাস ডিফেন্ড করবেন ?

প্রথমত, ট্র্যাডিশনাল ভাইরাসের যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পেতে উইন্ডোজ এর পরিবর্তে লিনাক্স বা ম্যাক ওএস এর মতো অধিকতর নিরাপদ এবং তুলনামূলক কম প্রচলিত অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করা উত্তম।

দ্বিতীয়ত, কম্পিউটার বা ডিভাইসকে অনিরাপদ রাখার চেয়ে ফ্রি অ্যান্টিভাইরাস বা অ্যান্টিম্যালওয়্যার ব্যবহার করা অধিকতর নিরাপদ। অনেক অ্যান্টিভাইরাস ও অ্যান্টিম্যালওয়্যার এর ফ্রি ভার্সন অনলাইনে পাওয়া যায়।

অপরিচিত সোর্স থেকে ডাউনলোড করা প্রোগ্রাম রান না করাই উত্তম। প্রয়োজনে অ্যান্টিভাইরাস এর অরিজিনাল সিডি কেনা যেতে পারে, যা কিনা প্রায় সকল ধরনের ট্র্যাডিশনাল ভাইরাসের হাত থেকে ডিভাইসকে নিরাপদ রাখতে পারবে।

অপরিচিত বা কোনো সন্দেহজনক ইমেইল এর সাথে সংযুক্ত কোনো .jpg গ্রাফিক ফাইল, .exe , vbs এর মতো ফাইল রান না করাই শ্রেয়।

ভাইরাসের হাত থেকে ডিভাইসের সুরক্ষার পাশাপাশি ‘ইন্টারনেট সিকিউরিটি’ অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। কেনোনা বর্তমানে অনলাইন সার্ফিং বা অনলাইন ব্যবহার পূর্বের যে কোনো সময়ের তুলনায় অনেক বেড়েছে। একারনেই ইন্টারনেট থেকে ডিভাইসে ভাইরাস এর আক্রমন ঠেকাতে সিস্টেম সিকিউরিটি এক্সপার্টরা ভালো মানের একটি অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহারের পরামর্শ দিয়ে থাকেন । কম্পিউটারকে ভাইরাস, ম্যালওয়্যার সহ সবধরনের ক্ষতিকর প্রভাব থেকে নিরাপদ রাখতে সিকিউরিটি বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ অনুযায়ী ব্যবহার করতে পারেন Emsisoft, ESET, Malwarebytes এর মতো ভরসাযোগ্য কিছু সফটওয়্যার।

]]>
https://tosbd.com/antivirus-software/feed/ 2
BDIX FTP Server List in Bangladesh – Top 10 Ftp Server Bd | 2023 https://tosbd.com/bdix-ftp-server-list-in-bangladesh/ https://tosbd.com/bdix-ftp-server-list-in-bangladesh/#respond Sun, 30 May 2021 08:14:15 +0000 https://tosbd.com/?p=16614 Are you looking for the best BDIX FTP server list in Bangladesh? We are going to introduce the top 10 latest bd FTP servers. This article is for those who love to download videos, songs, games, software and watch live tv online will love this article. You can download anything from the internet with lightning speed using a BDIX server.

BDIX FTP Server List In BD

BDIX FTP server is famous for live TV streaming. It has its own live streaming service, and you can watch any TV show, sports from this FTP server. You can also download various software, games, and movies also. Here is the list of the best BDIX FTP Server in Bangladesh:

Best Movie Server:

 

Best Torrent FTP:

Best FTP BDIX Software Server:

Best FTP BDIX Game Server:

You May Also Like: BDIX VPS Hosting

Best FTP BDIX TV Servers:

**Note: Many servers will not work on your ISP but will work on others ISPs.

Best 10 FTP BDIX Server List in Bangladesh

As we have told you earlier, you don’t need all of those servers to watch a movie, listen to songs, download software, games, or stream TV. Many servers limit their access, and many have update issues. If the FTP owner does not update its content regularly, you won’t get new content. Look for those servers that do not have quality content only but are also updated regularly.

Therefore, we have prepared the best 10 FTV BDIX server list in Bangladesh:

1. Circle FTP Server

This is most probably the best FTP BDIX server in Bangladesh. You can also find this server at this IP address: 15.1.1.1. The server does not only updates regularly but also has a great client request facility. You can request any content except adult content or Bangladeshi content, and you will see the providers will upload that content within 2/3 hours.

Check Also: Best BDIX Web Hosting In Bangladesh

You will find the latest movies, TV series, games, software, songs, and any other audio, video content on this server. If you have access to this server, you probably don’t need any different FTP servers.

Circle FTP Server

2. FTPBD

The look of the website is updated and user-friendly. The FTP server has a vast collection of videos and games. The software collection is also vibrant. The provider keeps all the content organized and easy to search and download. Business Network or B.NET owns this FTP server. The only downside is the server does not have any user request feature.

FTPBD

3. Net@Home

This is another excellent FTP BDIX server. The server has a great collection of the latest movies and games. It provides incredible download speed, and the providers update the content regularly. You can also request content, and they will upload the content except for Bangladeshi content. The only downside is they don’t have a great collection of software and games.

Net@Home

4. MangoGamers FTP Gaming Server BD

Are you a gamer and looking for an FTP BDIX server that provides all the latest games online? Well, The MangoGamers FTP gaming server is the best you can get. As the name suggests, this server is dedicated to games only, and you can get any games here.

The most exciting part is you will also find older games on this server. If you want to be nostalgic, download 90’s games and play from this server. Moreover, you can request a game.

MangoGamers FTP Gaming Server BD

5. BongoBD Content on Demand

FTP servers maintain a strict rule about Bangladeshi content. Most FTP server owners don’t upload our country’s content because of copyright issues. But don’t get upset. If you want to watch Bangladesh content, BongoBD will provide you that.

BongoBD Content on Demand

This is a content-on-demand base service, and you will have to purchase their subscription to watch their content. We also tell you not to download and watch our content as this piracy is destroying our media industry. We should support our content creators by watching them legally.

6. MYbdplex

This is a good FTP BDIX server with tons of movies, tv-series. It has a good collection of games and software. The download speed is fair enough. The website is beautifully designed, and you can find any content easily. The server has limited access, and if you can access the server, it is worth a try.

MYbdplex

7. CrazyCTG FTP server

You might have guessed it; the server is in Chittagong. But that does not mean you can not access it. The server is accessible from anywhere in Bangladesh, but you will get improved speed if you are in Chittagong.

You May Also Check: BDIX Dedicated Server

It is a movie FTP server, and you will find all the latest movies and TV series on this server. The website is easy to navigate. But there is no request option, and the download speed is really slow outside Chittagong.

CrazyCTG FTP server

8. Elaach FTPBD Server

Triangle Network ISP owns this server, and this is one of the best FTP BDIX servers in Bangladesh. You will find all the latest movies, TV series, PC, Android, and Console games. They have an excellent collection of software.

If you are looking for an online streaming service, we will also recommend this site as they have excellent online streaming facilities.

Elaach FTPBD Server

9. Roar Media zone

The roar media has many linked FTP servers to it. The FTP server has tons of movies and TV series, software. But the providers don’t update the server quite frequently. They have a request option, but it seems they don’t care for what you are saying. If you want to watch live TV, then it is an excellent choice for you.

10. NaturalBD

This is another well-designed FTP BDIX server, and you will find the content you are looking for easily from there. It has very good Movies, TV series, and games collections. The software collection Is not that good, but you will find the most popular ones.

NaturalBD

Frequently Asked Question About FTP BDIX Server

What is an FTP server?

FTP means File Transfer Protocol. It is software that distributes hosted files from a computer to other connected devices in the network. You can connect to the remote computer anonymously or using your user name or password. However, the remote computer owns the right to access who can use the server and who can not.

Why Use BD FTP Server?

FTP servers provide many advantages. Some of the benefits are as bellows:

  • No Need to worry about Seed/Leech. Just click and download.
  • Lightning-fast download speed.
  • Download speed doesn’t depend on your internet speed.
  • You can download multiple files at once.
  • You can resume the download session if the connection is lost.
  • No size limitations.

What is BDIX Server?

BDIX or Bangladesh Internet Service Exchange is the first IXP or internet service Exchange point of Bangladesh. Major ISP companies in Bangladesh started this service in 2014. If your ISP is BDIX supported, you can access any BDIX server and download any file. BDIX members open the file-sharing platforms for everybody who has access to that server.

How Many BDIX Servers Are There?

You can find more than 350 BDIX servers in Bangladesh. But not every server provides the same service. Some services are for watching live TV, some give just download links, and you can watch movies/TV series online on some servers. You don’t need all of those servers. One or two good servers are enough for you to watch or download files. You will need the best FTP BDIX list in Bangladesh for that.

Conclusion

In Bangladesh, you will find more than 350 FTP BDIX servers, and it is a huge task to list the best FTP BDIX server list in Bangladesh. We have done extensive research and brought some of the best. Some servers won’t run on your ISP because of the access policy of the ISP owner.

You can try one by one from our list of “Best FTP BDIX server list in Bangladesh” and hopefully will find a server that is fit for you.

আরো জানতে পড়ুন: ক্র্যাপওয়্যার কি, কিভাবে ক্র্যাপওয়্যার থেকে সুরক্ষিত থাকবেন?

]]>
https://tosbd.com/bdix-ftp-server-list-in-bangladesh/feed/ 0
ক্র্যাপওয়্যার কি, কিভাবে ক্র্যাপওয়্যার থেকে সুরক্ষিত থাকবেন? https://tosbd.com/crapware/ https://tosbd.com/crapware/#respond Sat, 20 Mar 2021 09:10:32 +0000 https://tosbd.com/?p=15479 ইন্টারনেট এবং Wikipedia র ভাষায় ক্র্যাপওয়্যার (Crapware) মানে প্রি – ইন্সটলড (Pre-Installed) সফটওয়্যার। অনেক সময় আমরা পিসিতে ব্যবহারের জন্য ইন্টারনেট থেকে বিভিন্ন ধরনের সফটওয়্যার ডাউনলোড করি। আর অধিকাংশ সফটওয়্যার ডাউনলোড করার পর ইন্সটল করার ক্ষেত্রে দেখা যায় ঐ সফটওয়্যারের সঙ্গে আরো কিছু অতিরিক্ত সফটওয়্যার ইন্সটল হয়ে যায়। আর এই অতিরিক্ত ইন্সটল হওয়া সফটওয়্যার গুলোকে ক্র্যাপওয়্যার বলে।

ক্র্যাপওয়্যারের ক্ষতিকর দিকগুলো

নরমালি ক্র্যাপওয়্যার (Crapware) মানেই যে ভাইরাস এবং এটি যে সব সময় আপনার পিসির জন্য ক্ষতিকারক এমনটি ভাবা ভুল। কিন্তু ক্র্যাপওয়্যার থেকে সব সময় পিসিকে সুরক্ষিত রাখা উচিৎ, আর এর জন্য আপনাকে পিসিতে ক্র্যাপওয়্যার ব্লক করে রাখতে হবে। কারন ক্র্যাপওয়্যার (Crapware) আপনার কোন কাজে আসবে না, এটি শুধু মাত্র আপনার প্রয়োজনীয় সফটওয়্যারের সাথে অতিরিক্ত অ্যাডন (Addon) বা মডিউল হিসেবে ইন্সটল হয়েছে। পিসিতে সফটওয়্যার ইন্সটল করার সময় একটু কেয়ারফুল হলে এই ধরনের সমস্যাগুলো থেকে বাচা যায়। আমরা অনেকেই পিসিতে সফটওয়্যার ইন্সটল করার সময় শুধু Next এ ক্লিক করে ইন্সটলেশন সম্পন্ন করি। কিন্তু কি ইন্সটল করছি তা তো একবার দেখা উচিৎ।

ক্র্যাপওয়্যারের সবচেয়ে ক্ষতিকারক দিকগুলো হচ্ছে, আপনার অজান্তে পিসিতে ক্রিপ্টোজ্যকিং করা। ক্রিপ্টোজ্যকিং বলতে আপনার পিসির হার্ডওয়্যার ব্যবহার করে অন্য কেউ হয়তো বিটকয়েন মাইনিং করছে। এই রকম ও হতে পারে যে, কেউ আপনার পিসির সবগুলো ডাটা এই ক্রিপ্টোজ্যকিং এর মাধ্যমে হাতিয়ে নিচ্ছে। অনেক সময় দেখা যায়, এই ক্র্যাপওয়্যার (Crapware) গুলো আপনার পিসির স্টার্টআপ সেকশনে এনাবেল হয়ে থাকার কারনে ব্যাকগ্রাউ্ন্ড এ নতুন সব প্রচেস রান হয় এবং পিসি অনেক স্লো হয়ে যায় এছাড়াও পিসির বুট টাইম বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। কিছু ক্র্যাপওয়্যার রয়েছে যেগুলো কম্পিউটার স্টোরেজ এর অনেক জায়গা দখল করে নেয়। আর এ জন্যই ক্র্যাপওয়্যার এর ক্ষতিকর দিকগুলো বিবেচনা করে পিসিকে সুরক্ষিত রাখার জন্য ক্র্যাপওয়্যার ব্লক করে রাখা উচিৎ।

বিস্তারিত জানতে ঘুরে আসুন – এই লিঙ্ক থেকে

]]>
https://tosbd.com/crapware/feed/ 0
Free Theme Offer https://tosbd.com/free-theme-offer/ https://tosbd.com/free-theme-offer/#respond Mon, 13 Apr 2020 15:16:31 +0000 https://tosbd.com/?p=15011 আমাদের থেকে ওয়েবহোস্টিং সার্ভিস নিলেই পাচ্ছেন ফ্রীতে একটি ওয়ার্ডপ্রেস প্রিমিয়াম থিম। থিম, পাওয়ার জন্য আমাদের ওয়েবহোষ্টিং সার্ভিস অর্ডার করার পরে আমাদের লাইভচ্যাট কিংবা সাপোর্ট টিকিটে এখান থেকে একটি থীম লিংক পছন্দ অনুসারে দেয়া হবে। আর হ্যাঁ এই থীমগুলো ১০০% অরজিনাল আমার লাইসেন্স সহ ফাইল দিয়ে দেয়া হবে।

Here is details

——————————

E-commerce theme

NewsPaper Theme

  1. https://codeless.co/thype/presentation/
  2. http://demo.sneeit.com/magone/
  3. https://victorthemes.com/themes/cascara
  4. http://demo.sneeit.com/flatnews/
  5. http://labs.saurabh-sharma.net/themes/newsplus/demo-3
  6. http://trendytheme.net/demo/trendymag/
  7. https://intothedesign.com/demos/wppm-el
  8. http://thenextmag.bk-ninja.com/landing/
  9. https://demo.goodlayers.com/urbanmag/
  10. http://thenextmag.bk-ninja.com/landing
  11. http://themes.g5plus.net/achilles/
  12. http://atixscripts.info/demo/minimag/landing/
  13. https://darinka.design/insider/
  14. https://the-newspaper.cmsmasters.net/landing/
  15. http://quanticalabs.com/wp_themes/pressroom/

Multipurpose Theme

Tour & Travel

  1. https://dtora.wpengine.com/
  2. https://tejal.wpengine.com/
  3. http://www.nicdarkthemes.com/themes/hotel/wp/demo/intro/
  4. http://tourpress.inspirydemos.com/
  5. http://travesia.axiomthemes.com/
  6. http://shtheme.net/preview/charlostin/
  7. http://tripster.axiomthemes.com/
  8. http://shtheme.com/demosd/anondho
  9. https://tonsberg.modeltheme.com/home-slider/?
  10. http://nordthemes.com/iceberg/

Question & Answer

  • Q. কিভাবে ফ্রি থিম পাওয়া যাবে?
  • A. আমাদের ওয়েবহোষ্টিং সার্ভিস অর্ডার করার পরে আমাদের লাইভচ্যাট কিংবা সাপোর্ট টিকিটে এখান থেকে একটি থীম লিংক পছন্দ অনুসারে দেয়া হবে।
  • Q. এই থীম গুলো কি অরজিনাল?
  • A. হ্যা। এই থীমগুলো ১০০% অরজিনাল আমার লাইসেন্স সহ ফাইল দিয়ে দিব।
  • Q. আমি কি একাধিক সাইটে ব্যবহার করতে পারব ?
  • A. না আপনি শুধু একটি সাইটেই ব্যবহার করতে পারবেন। আমার লাইসেন্স শুধু একটি সাইটের জন্যই দিব।
  • Q. আপনারা কি থীম সেটাপ করে দিবেন ?
  • A. না। আমার কোন থীম সেটাপ করে দিব না। আপনার নিজের সেটাপ করতে হবে। আমার সেটাপ করলে প্রতিটি থীম সেটাপ ফি ৮০০০ টাকা দিতে হবে।
  • Q. হোষ্টিং রিনিউ প্রাইস কত?
  • A. আপনি যেই দামে ক্রয় করবেন একই দামেই প্রতি বছর রিনিউ করতে পারবেন। আমাদের কোন হিডেন চার্জ নেই।
  • Q. হোস্টিং সার্ভার লোকেশন কোথায় ?
  • A. আমাদের ৫ লোকেশনে সার্ভার রয়েছে। UK, USA, Singapore, Bangladesh & France
  • Q. সার্ভার স্পিড কেমন হবে ?
  • A. আমরা SSD ডিস্ক এবং লাইটস্পিট ওয়েব সার্ভার ব্যবহার করি। যে কোন রেগুলার সার্ভার থেকে আমাদের স্পিড ভাল হবে।
  • Q. পেমেন্ট কিভাবে করতে পারব ?
  • A. আপনি Bkash, Rocket, DBBL, EBL, City Bank সহ যেকোন ব্যাংকের Visa, MasterCard, Nexus কার্ড দিয়েও পেমেন্ট করতে পারবেন।
  • Q. ওয়েব সাইট ট্রান্সফার করে দিবেন ?
  • A. হ্যা আমরা আপনার পুরাতন হোস্টিং থেকে আমাদের সার্ভারে সাইট ট্রান্সফার করে দিব।

আরো জানতে পড়ুন: অরিজিনাল উইন্ডোজ এর সুবিধা সমূহ

]]>
https://tosbd.com/free-theme-offer/feed/ 0
Hello world! https://tosbd.com/hello-world/ https://tosbd.com/hello-world/#comments Wed, 07 Aug 2019 13:34:15 +0000 http://sw-themes.com/porto_dummy/?p=1 Welcome to Porto WordPress Demos. This is your first post. Edit or delete it, then start blogging!

]]>
https://tosbd.com/hello-world/feed/ 1
অরিজিনাল উইন্ডোজ এর সুবিধা সমূহ https://tosbd.com/%e0%a6%85%e0%a6%b0%e0%a6%bf%e0%a6%9c%e0%a6%bf%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%b2-%e0%a6%89%e0%a6%87%e0%a6%a8%e0%a7%8d%e0%a6%a1%e0%a7%8b%e0%a6%9c/ https://tosbd.com/%e0%a6%85%e0%a6%b0%e0%a6%bf%e0%a6%9c%e0%a6%bf%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%b2-%e0%a6%89%e0%a6%87%e0%a6%a8%e0%a7%8d%e0%a6%a1%e0%a7%8b%e0%a6%9c/#respond Thu, 21 Feb 2019 17:20:53 +0000 https://tosbd.com/?p=14807 তথ্য প্রযুক্তির যুগে আমরা প্রতিদিনই হচ্ছি নির্ভর। আর বর্তমান প্রযুক্তির বড় একটি অংশ হচ্ছে কম্পিউটার। আমাদের মধ্যে খুব কম লোকই রয়েছে, যার কম্পিউটার সম্পর্কে ধারনা নেই। আর এই কম্পিউটার অপারেট করতে গিয়ে আমরা প্রতিনিয়ত কিছু না কিছু সমস্যায় পড়ি। আর এই সমস্যাগুলোর অন্যতম কারন হচ্ছে পাইরেটেড সফটওয়্যার, অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করা। কম্পিউটার এর জন্য প্রয়োজনীয় বিভিন্ন ধরনের সফটওয়্যার এবং অপারেটিং সিস্টেম এর চওড়া দামের কারনে ম্যাক্সিমাম ব্যবহারকারীরা ক্র্যাক সফটওয়্যার এবং অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহারে অভ্যস্ত। ক্র্যাক এবং অরিজিনাল উইন্ডোজ সম্পর্কে জানতে নিচের আর্টিকেলটি ফলো করুন।

অরিজিনাল উইন্ডোজ এর সুবিধা সমূহঃ

  • অরিজিনাল উইন্ডোজ ব্যবহারে আপনাকে নিরাপত্তা জনিত কোন বিষয় নিয়ে টেনশন করতে হবে না।
  • নতুন আপডেট না আসা পর্যন্ত আপডেট নিয়ে কোন ঝামেলায় পড়তে হয় না ।
  • যে কোন ডিভাইস ড্রাইভার আপডেট এর প্রয়োজন হলে উইন্ডোজ অটোমেটিক সেটা ডাউনলোড করে ইন্সটল করে নেয়।
  • অরিজিনাল উইন্ডোজ এ কয় দিন পর পর পুরো অপারেটিং সিস্টেম আপডেট দিতে হয় না, মাইক্রোসফট থেকে নতুন আপডেট আসার সাথে সাথে আপডেট ইন্সটল হয়ে যায়।
  • হার্ডওয়্যার রিকয়ারমেন্ট ঠিক থাকলে স্লো হওয়ার সম্ভাবনা একদম কম থাকে।
  • ব্যক্তিগত ব্যবহারের ক্ষেত্রে আলাদা করে অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহারের প্রয়োজন হয় না।
  • অরিজিনাল উইন্ডোজ এ কয়েকদিন পর পরই সিকিউরিটি আপডেট আসে, এতে আপনার পিসি থাকে সুরক্ষিত।

এছাড়া ও আরো অনেক ধরনের সুবিধা রয়েছে, সব ধরনের সুবিধা পেতে আজই অরিজিনাল উইন্ডোজে শিফট করুন এবং নিরাপদ থাকুন। স্বল্প মূল্যে উইন্ডোজ সহ প্রয়োজনীয় সব সফটওয়্যার ক্রয় করতে ভিজিট করুন https://tosbd.com/software . টোটাল অনালাইন সলিউশন মাইক্রোসফট কর্পোরেশন এর অথরাইজড পার্টনার।

আরো জানতে পড়ুন: মাইক্রোসফট অফিস ৩৬৫ – কি, কেন এবং কিভাবে ব্যবহার করবেন?

]]>
https://tosbd.com/%e0%a6%85%e0%a6%b0%e0%a6%bf%e0%a6%9c%e0%a6%bf%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%b2-%e0%a6%89%e0%a6%87%e0%a6%a8%e0%a7%8d%e0%a6%a1%e0%a7%8b%e0%a6%9c/feed/ 0